এই মাত্র পাওয়া :

ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯

শিরোনাম

  •          

গোপালগঞ্জে লেক থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে পাকা সড়ক দেবে গেছে।

বিভাগ : দেশের খবর প্রকাশের সময় :20 November, 2019 8:09 : PM

মুন্সী মোহাম¥দ হুসাইন, গোপালগঞ্জ:

গোপালগঞ্জ জেলা সদরের মধুমতি লেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে দেবে গেছে শহরের মারকাজ মহল্লার পৌর কাউন্সিলর মোঃ আল-আমিন ইসলামের বাড়ির সামনের পাকা সড়ক।

বুধবার সকালে ওই এলাকার বাসিন্দারা ঘুম থেকে উঠে দেখতে পায় তাদের বাড়ির সামনের হাউজিং কমপ্লেক্স সড়কটির ১০০ ফুট কার্পেটিং রাস্তা প্রায় ৪ ফুট নিচে দেবে গেছে। মূহুর্তেই এলাকায় এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে হাজারো লোক ভাঙ্গা রাস্তা দেখতে ভীড় জমায়। এদিকে সকাল থেকেই ওই সড়কটি দিয়ে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল এমনকি মানুষের পায়ে হেটে চলাচলও বন্দ হয়ে গেছে। স্থানীয়রা দ্রুত সড়কটির ক্ষতিগ্রস্ত ওই রাস্তা মেরামত করে জনগনের চলাচল যানবাহনের জন্য উপযুক্ত করার দাবী জানিয়েছে।

স্থানীয় সাধারন লোকজন জানায়, শহরের মধুমতি লেক থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের জন্যই মারকাজ মহল্লার হাউজিং রোডের এই সড়কটি দেবে গেছে। এর ক’দিন আগেও পাচুড়িয়া খালের তীরের খাদ্যগুদামের সামনের সড়কটি একই কারনে দেবে গেছে। এভাবে বালু উত্তোলনের এ চিত্র সারা বছরেরই কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে কার্যকরী পদক্ষেপ না নেওয়ায় এসব রাস্তা দেবে যাওয়ার ঘটনা ঘটছে।

ক্ষতিগ্রস্ত ওই রাস্তার পার্শ্ববর্তী বাড়ির মালিক ও গোপালগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর মোঃ আল-আমীন ইসলাম বলেছেন, কিছুদিন আগে শহরের মধুমতি লেক খনন করা হয়েছে। স্কাবিটর দিয়ে মাটি না কেটে মিনি ড্রেজার দিয়ে মারকাজ মহল্লার ওই এলাকায় খনন করে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হয়েছে। মিনি ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করলে আশপাশের রাস্তা বা বাড়ির মাটির নীচের বালুও সরে যায়। নীচের স্তরের বালু সড়ে গিয়েই আমার বাড়ির সামনের পাকা রাস্তা দেবে গেছে। আশপাশ এলাকায় আরো দু’এক জায়গায় দেবে যাওয়ার আশংকা করছেন এই কাউন্সিলর।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গোপালগঞ্জ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র মোঃ নাজমুল হাসান নাজিম বলেছেন, এলাবাসীর কাছে সংবাদ পেয়ে আমরা পৌরসভার প্রকৌশলীদের নিয়ে সরজমিনে পরিদর্শন করেছি। আগামী দু’একদিনের মধ্যেই আমরা মারকাজ মহল্লার ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাটি মেরামত করে যানবাহন চলাচল ও জনগনের চলাচলের উপযুক্ত করে দিব।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা বলেছেন, বিষয়টি আমি জানার পরই গোপালগঞ্জ পৌরসভাকে নির্দেশ দিয়েছি। তারা ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে। আশা করছি অতি অল্প সময়ের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাটি মেরামত করে যানবাহন ও জনগনের চলাচলের উপযুক্ত হবে।



ফেইসবুকে আমরা