এই মাত্র পাওয়া :

ঢাকা, রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০

যশোর সদরে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও বাঘারপাড়া-উপনির্বাচন ১০ ডিসেম্বর

বিভাগ : দেশের খবর প্রকাশের সময় :৬ নভেম্বর, ২০২০ ৮:৪১ : অপরাহ্ণ


যশোর প্রতিনিধি
:


আগামী ১০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে যশোর সদর উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন। ১৫ নভেম্বর মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ তারিখ। ইতোমধ্যে এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা এসেছে। জেলা নির্বাচন অফিস এ বিষয়ে দুএকদিনের মধ্যে ঘোষণা করবে তফসিল। এদিকে গত ২০ অক্টোবর যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনের পর উপনির্বাচন নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা ও গুঞ্জন। এ নির্বাচনকে ঘিরে কর্মী এবং সমর্থকদের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে নানা কৌতুহল । এ উপনির্বাচনে কারা হচ্ছেন প্রার্থী তা নিয়ে চলছে গুঞ্জন। নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী শুন্য ঘোষিত পদে ৯০ দিনের মধ্যে রয়েছে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা। তবে বিশেষ পরিস্থিতিতে আরো ৯০ দিন পিছিয়ে নির্বাচন করা যেতে পারে। সদর উপজেলার সংরক্ষিত মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান নূরজাহান ইসলাম নীরা পদত্যাগ করে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নেয়ায় এবং নাজমুল ইসলাম কাজলের সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুতে বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ শুন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী নূরজাহান ইসলাম নীরা ২লাখ ৭৬ হাজার ১৯ ভোট পেয়ে বিশাল ব্যবধানে নির্বাচিত হন। নির্বাচনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনিত এবং একমাত্র প্রার্থী নূর-উন-ন্নবী পেয়েছেন ১২ হাজার ৩৯৪ ভোট। সদর উপজেলায় মোট ভোটার ৫ লাখ ৬২ হাজার ২৯৭ জন। এর মধ্যে ২ লাখ ৮১ হাজার ২৬১ জন পুরুষ এবং ২ লাখ ৩৬ জন মহিলা ভোটার। গত ৭ সেপ্টেম্বর ঢাকা-সিলেট মহসড়কের মাধপপুর উপজেলার নয়াপাড়া নামক স্থানে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেন বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজল। এর পরে এ উপজেলার চেয়ারম্যান পদটি শুন্য ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন কাজল। ২৫ সালের ১৯ মে পর্যন্ত তার মেয়াদ থাকলেও মৃত্যুজনিত কারনে পদটি শুন্য হয়। উপনির্বাচনকে সামনে রেখে যশোর সদর উপজেলা মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হিসেবে নবগঠিত জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জ্যোস্না আক্তার মিলি ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সেতারা খাতুনের নাম আলোচনায় রয়েছে। এ বিষয়ে মিলি জানান, নির্বাচন নিয়ে আমার কোনো সিদ্ধান্ত নেই। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদারের নির্দেশনায় কাজ করবো। সেতারা খাতুন বলেন, নির্বাচনে অংশ নিতে প্র¯‘তি রয়েছে। সাধারণ ভোটারদের সাথে যোগাযোগও শুরু করেছি। এদিকে বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক সামছুজ্জামানের নাম আলোচনায় রয়েছে অনেক আগে থেকে। এখানে আওয়ামী লীগ থেকে প্রয়াত চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজলের সহধর্মিনী ভিক্টরিয়া পারভিন, বিগত নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থী হাসান আলী, সাবেক ভাইসচেয়ারম্যান আব্দুর রউফ, সংসদ সদস্য রনজিৎ রায়ের পুত্র রাজিব রায়, উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ স্বপন, জহুরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারী ও জেলা পরিষদ সদস্য বিপুল ফারাজীর নাম আলোচনায় রয়েছে।
নির্বাচন বিষয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার হুমায়ুন কবীর বলেন, এ নির্বাচন বিষয়ে নির্দেশনা পেয়েছি আমাদের প্র¯‘তিও রয়েছে। এখন শুরু হয়েছে তফসিল ঘোষণার কার্যক্রম। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, তফসিল ঘোষণার পরে সিদ্ধান্ত নেব কে হবে দলের প্রার্থী। অপর দিকে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন বলেন, দলের হাইকমান্ড থেকে যে নির্দেশনা আসবে আমরা সেই সিদ্ধান্ত মেনে কাজ করবো।

Print Friendly and PDF

ফেইসবুকে আমরা